মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:২৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
শক্তিশালী ভ‚মিকম্পে তুরস্কে ও সিরিয়ায় নিহত ১৩০০ ছাড়িয়েছে সুন্দরবনের তিন বাঘ টহলফাঁড়ি এলাকায় নিরাপত্তা হীনা নাকি খাদ্যভাব, কি জানান দিতে এসেছিল তারা? সাতক্ষীরা থানা পুলিশের অভিযানে ১৮ পিচ স্বর্ণের বার সহ ১ চোরাকারবারী আটক তিন ফসলি জমিতে প্রকল্প না নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মুন্সিগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে বাঘের চামড়া উদ্ধার সুন্দরবনের শরবতখালী টহল ফাঁড়িতে দুই বাঘের গর্জন আতঙ্কে বনরক্ষীরা বাঁশদহা আ’লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জের ফকির এপ্যারেলস পরিদর্শনে বেলজিয়ামের রাণী সাতক্ষীরায় রোজ গার্ডেন স্কুলে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরনী আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো

আশাশুনিতে ছাত্রীর মামলায় অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক দুঃখীরাম ঢালী জেল হাজতে

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২৩

এম এম নুর আলম \ আশাশুনি উপজেলার কোদন্ডা হাইস্কুলের এক ছাত্রীর দায়েরকৃত নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলায় চার্জশীটভুক্ত আসামী প্রধান শিক্ষক দুঃখীরাম ঢালীর জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছেন আশাশুনি, সাতক্ষীরার বিচারিক আদালত। রোববার রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করে পাবলিক প্রসিকিউটর এড. জহুরুল হায়দার। তাকে সহযোগিতা করেন এড. শহীদুল ইসলাম পিন্টু, এড. একে আজাদ ও এড. বদিউজ্জামান বাচ্চু। আসামী পক্ষের আইনজীবি ছিলেন, এড. লুৎফর রহমান ও এড. হায়দার আলী। এড. একে আজাদ জানান, শিক্ষার্থীর দায়ের করা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলায় চার্জশীটভূক্ত আসামী আশাশুনির কোদন্ডা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী বেউলা গ্রামের মৃত. বিন্দু চরণ ঢালীর পুত্র দুঃখীরাম ঢালী মহামান্য হাইকোর্ট থেকে অর্ন্তবর্তীকালীন জামিনে ছিলেন। রোববার আশাশুনি সাতক্ষীরার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত দীর্ঘ শুনানী শেষে তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। দুঃশ্চরিত্র, দ্বৈত নাগরিক প্রধান শিক্ষকের জামিন নামঞ্জুর হওয়ায় বাদী পক্ষের আইনজীবি, বাদীর পরিবারসহ স্কুলের অধিকাংশ অভিভাবক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। উলে­খ্য, প্রধান শিক্ষক দুঃখীরাম ঢালী ১০ শ্রেণির এক ছাত্রীকে প্রাইভেট পড়াকালীন সময়ে অশালীন কথাবার্তা, টানা হেচড়াসহ বিভিন্নভাবে কুপ্রস্তাব দিতেন। মামলায় উলে­খিত ঘটনার দিন বিকালে পড়ার পরে একা পেয়ে তার ওড়না ধরে টানাটানি করা এবং জাপটে ধরে স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানি ঘটান ওই প্রধান শিক্ষক। এ ঘটনায় ভিকটিম নিজেই বাদী হয়ে আশাশুনি থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ১৭ মে’২২ তারিখে মামলা দায়ের করে। যার জিআর মামলা নং-১১৬/২২। প্রথমে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আবু হানিফ ও পরে এসআই গোলাম মোস্তফা মামলার ৬ জন স্বাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহন ও সরেজমিনে ঘুরে দীর্ঘ তদন্ত শেষে ভিকটিমের দায়েরকৃত নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে অভিযোগ প্রাথমিকভাবে সত্য বলে প্রমানিত হওয়ায় আসামীর বিরুদ্ধে আদালতে চার্জসীট দাখিল করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com