রবিবার, ২২ মে ২০২২, ০৮:০৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
বারবার খননেও বিবর্ণ প্রাণহীন প্রাণসায়ের \ ঘটাতে হবে প্রাণসঞ্চার \ হতে পারে পর্যটন স্পট বন্ধ হবে না পদ্মায় ফেরি ও স্প্রিডবোর্ট চলাচল \ লঞ্চ চলার বিষয়টি বিবেচনাধীন সাতক্ষীরায় জ্যৈষ্ঠ মাসেও বৈশাখের চোখ রাঙ্গানো ঝড় \ টানা বৃষ্টিতে জনজীবন বিপর্যস্থ জেলা পরিষদ প্রশাসক আলঃ নজরুল ইসলামের সাথে জুয়েলার্স সমিতির সৌজন্য সাক্ষাৎ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তাৎক্ষণিক ভাবে গ্রেপ্তার না করার নির্দেশ কলারোয়ায় ভুমি সেবা সপ্তাহে ভুমি মালিকদের সেবা না দিয়ে সেবা বুথে চলছে ধুমপানের আড্ডা শ্যামনগর সরকারি মহসিন কলেজের চলমান কাজ পরিদর্শন কালিগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা জাতীয় গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টের উদ্বোধন কৃষি পণ্য রপ্তানীতে বাংলাদেশ এবং অর্থনৈতিক সাফল্য দেবহাটার শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ আবুল কালাম

ইউক্রেনে বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্লেন ধ্বংস করলো রাশিয়া

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১ মার্চ, ২০২২

এফএনএস আন্তর্জাতি ডেস্ক: গত কয়েকদিন ধরেই ইউক্রেনে সংঘাত চলছে। বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্র“য়ারি) ইউক্রেনে হামলা চালায় রাশিয়া। তারপর থেকেই উত্তেজনা বাড়ছে। এই সংঘাতে দুপক্ষেরই ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানি ঘটেছে। এদিকে ইউক্রেনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আন্তোনভ এন-২২৫ নামে তাদের একটি প্লেন ধ্বংস করেছে রাশিয়া। এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্লেন। ¤্রয়িা বা স্বপ্ন নামের এই বৃহদাকার প্লেনটি ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের একটি এয়ারফিল্ডে রাখা হয়েছিল। ইউক্রেন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এটি রুশ সেনাদের হামলায় ধ্বংস হয়েছে। তবে ইউক্রেন বলছে, তারা আবারও এই প্লেন নির্মাণ করবে। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্র কুলেবা এক টুইট বার্তায় বলেন, রাশিয়া বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্লেন ¤্রয়িা ধ্বংস করতে পারে। তবে একটি শক্তিশালী, স্বাধীন এবং গণতান্ত্রিক ইউরোপীয় রাষ্ট্র গঠনে আমাদের যে স্বপ্ন তা তারা ধ্বংস করতে পারবে না। আন্তোনভ এন-২২৫ প্লেনটির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে ছিল ইউক্রেনের রাষ্ট্রীয় প্রতিরক্ষা কোম্পানি উকরোবরনপ্রোম। গত রোববার এক বিবৃতিতে তারা জানিয়েছে, প্লেনটি ধ্বংস হলেও পরবর্তীতে তারা রাশিয়ার কাছ থেকে ক্ষতিপূরণ নিয়েই এটি পুনর্নিমাণ করবে। এতে তিন বিলিয়ন ডলার ক্ষতি হয়েছে এবং এটি পুনর্নিমাণে কয়েক বছর সময় লাগতে পারে বলে জানানো হয়েছে। এদিকে গতকাল সোমবারও দেশটিতে সংঘাত চলমান রয়েছে। তবে কয়েকদিন ধরে চলা কারফিউ তুলে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। দেশটির প্রায় সব জেলাতেই এখনও রুশ সৈন্যদের সঙ্গে লড়াই চলছে। কারফিউ তুলে নেওয়ায় মুদি দোকানগুলো খোলা হয়েছে। ফলে মানুষ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে পারছে। গত দুই দিন ধরে বেশিরভাগ মানুষই বাড়ির আন্ডারগ্রাউন্ডে অবস্থান করছিলেন। এখন কিছুটা স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারবেন তারা। তবে দুপক্ষের সংঘর্ষের কারণে প্রতিনিয়তই সতর্ক থাকতে হচ্ছে। লোকজন সারাক্ষণই টেলিভিশনের পর্দা এবং মোবাইলের মাধ্যমে দেশের পরিস্থিতি নজরে রাখছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com