শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১:১৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
দেবহাটার বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রব্বানীকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন র‌্যাবের অভিযানে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার ১ বসন্তপুরে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইচ চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনা গান্ধুলিয়া দারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসার ১২ সদস্যের কমিটির ৭ জনেরই পদত্যাগ র‌্যাবের অভিযানে হত্যামামলায় আসামী আটক গাজায় আবারও নির্বিচারে বিমান হামলা আসন্ন ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ মোকাবেলায় শ্যামনগরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত ব্রহ্মরাজপুরে চাঁদার দাবিতে পিতা ও পুত্রকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম থানায় অভিযোগ দৃষ্টিপাত সাংবাদিককে কাছে পেয়ে আবেগে আপ্লুত,অশ্রুসিক্ত প্রিয় পাঠক আশাশুনি থানা পুলিশ ও ডিবির অভিযানে আটক-১০

ঐতিহ্যবাহী বাসা তৈরির সুনিপূণ কারিগর বাবুই পাখি হারিয়ে যাচ্ছে

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শনিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

জি,এম,আমিনুর রহমান রমজাননগর শ্যামনগর থেকে: সুজলা সুফলা শস্য শ্যামলা গ্রামবাংলা থেকে হারিয়ে যাচ্ছে বুদ্ধিমান ও শিল্পী বাবুই পাখি। বাবুই পাখি গ্রামবাংলার ছোট্র একটি শিল্পীর নাম। এ পাখি যেমন বুদ্ধিমান তেমনি শিল্পির মতো অপরুপ তার কারুকার্য। বাবুই পাখি দেখতে অনেকটা চুড়ুই পাখির মত। তবে আকারে একটু বড়। এরা ঝাঁক বেঁধে তাল গাছের চুড়ায় বসবাস করে, এরা খুব পরিশ্রমী পাখি। গ্রাম গঞ্জে এই বাবুই পাখি আর আগের মত চোখে পড়ে না। রজনীকান্তের কবিতা “বাবুই পাখিরে ডাকি, বলিছে চুড়াই, পাকা হোক, তবু ভাই, পরের ও বাসা, নিজ হাতে গড়া মোর কাঁচা ঘর, খাসা।” যার ফলে এখন আর আগের মতো এই পাখি দেখা যায় না। এক শ্রেনীর লোক শিকার করছে বাবুই পাখি। অন্যদিকে খাঁচায় বন্দি করে বেচা কেনাও হচ্ছে। এই বাবুই পাখির বাসা গ্রাম গঞ্জের একটি ঐতিহ্যবাহী দৃশ্য। তাল গাছের পাতার নিচের অংশে বাবুই পাখি বাসা তৈরী করে। বাবুই পাখিদের বাসা বানানোর নির্মাণ শৈলী, কারিগরী দক্ষতা দেখে আধুনিক যুগের প্রকৌশলীদেরও ভাবিয়ে তোলে। তাল পাতার ছেড়া তন্তু দিয়ে তারা বাসা বাঁধে। পাতা ছিড়ে এনে সুখ্য ভাবে ঠোঁট দিয়ে তা গাঁথুনী করে বাসা তৈরী করে, তাই এর নাম শিল্পী বাবুই পাখি। ঝড় বৃষ্টিতেও সেই বাসা ভেঙ্গে পড়ে না। তাল পাতার বাসায় কোন ভাবেই জল ঢোকে না। এ বাসায় প্রবেশ ও বাহির হওয়ার জন্য রয়েছে একাধিক দরজা। এ এক অদ্ভুত দৃশ্য। অন্ধকার ঘরকে কিভাবে আলোকিত করতে হয় তাও বাবুই পাখিরা ভালো ভাবেই জানে। বাবুই পাখির বাসার ভিতর আধুনিক যুগের মত লাইটের ব্যবস্থা আছে। বাসার ভেতর একটু গোবর রাখা হয়, তার ভেতর জোনাকি পোকার মাথাটি ঢুকিয়ে দেয়। ফলে জোনাকির আলোতে বাসা আলোকিত হয়ে উঠে। পরিবেশের বিপর্যয় আর নগরায়নের কারণে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে ফুটিয়ে তোলা পাখি আজ বিলুপ্তের পথে। তাছাড়া ক্ষেত খামারে বিভিন্ন রাসায়নিক কীটনাশক ব্যবহারের ফলে বাবুই পাখি রহস্যজনকভাবে মারা যাচ্ছে। তাছাড়া ছোট শিশুদের আগ্রহজনিত কারণে তারা বাবুই পাখির বাসা গুলো ভেঙে দিচ্ছে ঢিলা ছুড়ে। এখন সময়ের দাবি প্রকৃতিপ্রেমী পাখি বাবুইকে টিকেয়ে রাখা সকলের নৈতিক দায়িত্ব। ঐতিহ্যবাহী পাখির বাসা বানানোর এই কারিগরকে ফিরিয়ে আনতে সকলকে এক সঙ্গে চেষ্টা করতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com