মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০৩:৫৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

কলারোয়ায় ভুমি সেবা সপ্তাহে ভুমি মালিকদের সেবা না দিয়ে সেবা বুথে চলছে ধুমপানের আড্ডা

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় রবিবার, ২২ মে, ২০২২

কলারোয় (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি \ সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ভুমি সেবা সপ্তাহ-২০২২ এর উদ্বোধনের ৩ দিন পেরিয়ে গেলেও তেমন কোনো সাড়া জমেনি। ফলে কলারোয়া পৌর সদরসহ সাতটি ভুমি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অলস সময় পার করছেন। তবে এর মধ্যে উপজেলা ভুমি অফিসের এক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ভুমি সেবা বুথের মধ্যে প্রকাশ্যে ধুমপান অবস্থায় ঘোরাঘুরি করার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলা ভুমি অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ১৯ মে কলারোয়া উপজেলা মিলনায়তনে ভুমি সেবা সপ্তাহ-২০২২ এর উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুলী বিশ্বাস। যা আগামী ২৩ মে পর্যন্ত চলবে। উদ্বোধনকালে কয়েকটি ব্যানারে ভুমি সেবাকালীন সময়ে, ভুমি মালিকদের ৯ ধরনের সেবা দেওয়া হবে লিখে টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়। শনিবার ২১ মে বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে ভুমি সেবা সপ্তাহ-২০২২ এর হালনাগাদ খবর জানতে সরেজমিনে গেলে দেখা যায়, উপজেলার ৭টি ভুমি অফিসের জন্য আলাদ আলাদা ৭টি সেবা বুথ করা হয়। তবে উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়ন ভুমি সহকারী (নায়েব) রেজাউল ইসলাম ব্যতীত সবাই অনুপস্থিত ছিলেন। কেন তারা উপস্থিত নেই জানতে চাইলে, এ সময় দায়িত্বশীল কোনো কর্মকর্তা না থাকায় কেউ সদুত্তর দিতে পারেনি। তবে অত্যন্ত ন্যাক্কার জনক ঘটনা ভুমি সপ্তাহ চলাকানীন সময়ে ভুমি সপ্তাহ বুথের মধ্যে কলারোয়া ভুমি অফিসের নাজির সাইফুদ্দীনের প্রকাশ্যে ধুমপানরত অবস্থায় প্রবেশ করে ঘোরাঘুরি করতে দেখা যায়।যেটা ক্যামেরা বন্ধী করা হয়। এছাড়া সরেজমিনে গত তিন ধরে গতকাল পর্যন্ত কতজন ভুমি মালিক সেবা পেয়েছেন জানতে চাইলে তাও জানাতে পারেননি। উপজেলার মানিকনগর থেকে সেবা নিতে আসা ভুমি মালিক আব্দুর রহমান অভিযোগ আকারে বলেন, তিনি ভুমি সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে পর্চা ও ম্যাপের আবেদন করতে গেলে তাকে বলা হয় এসব আবেদন এখানে করা যায় না। অথচ ওই দুটিসহ ৯ প্রকারের সেবা দেওয়া হয় বলে ব্যানারে লেখা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এছাড়া সেবা নিতে আসা কলারোয়া পৌর সদরের মুরারীকাটি গ্রামের মৃত মোবারক আলীর ছেলে ইয়ার আলী মন্ডল বলেন, জমির নাম পত্তন করতে শুনি,১ হাজার ১শ ৭০ টাকা লাগে। কিন্তু আমার কাজ থেকে কিছুদিন আগে কলারোয়া ভুমি অফিস ৪ হাজার ৫০০ টাকা নিয়েছে। উপজেলা ভুমি অফিসের নাজির সাইফুদ্দীনের নিকট সেবা অফিসে তার ধুমপান করার বিষয়টি জানতে চাইলে,তিনি সত্যতা স্বিকার করে বলেন, পত্রিকায় লেখার দরকার নেই। দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা সহকারী (ভুমি) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুলি বিশ্বাস জানান, নায়েবদের ডিউটি রুটিন করে দেওয়া হয়েছে। আমি ব্যস্ত থাকার কারণে ভালো দেগভাল করতে পারি নাই। তবে দায়িত্ব অবহেলা এবং ধুমপানের বিষয়টি সত্যতা পেলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com