রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০৪ অপরাহ্ন

গাজার সর্বত্র মৃত্যু আতঙ্ক

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

দৃষ্টিপাত ডেস্ক ॥ ইসরাইল বাহিনীর ত্রিমুখি হামলায গাজায় নেমে এসেছে মৃত্যুর বিভিষিখা। প্রতিদিনই গাজায় মৃুত্যর মিছিল বাড়ছে সেই সাথে দখলদার বাহিনীর হামলা হতে প্রানে বাছতে আতঙ্কের ফিলিস্তিনিরা গাজা ভূ-খন্ড ছেড়ে পালাতে চাইছে কিন্তু নিরীহ নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিরা পালাতে পারচে না তারা পায়ে হেটে, ঘোড়ার গাড়ীতে করে পালাতে চাইলেও দখলদার বাহিনীর হামলায় নিহত এবং আহত হচ্ছে। গতকাল ও রাফা উত্তর ও পশ্চিম গাজায় ইসরাইলি বাহিনী ব্যাপক ভিত্তিক বিমান হামলা চালিয়েছে। ফিলিস্তিনিদের কবর ছাড়া যেন কোন জায়গা নেই। প্রতিদিনই নিহত ফিলিস্তিনিদেরকে গণ কবরে সমাহিত করা হচ্ছে। আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে রাফা শহর যেন জলন্ত এক বারুদ। যে বারুদের স্ফুলিঙ্গ প্রতিমুহুর্তে জ্বলছে রাফা শহরের প্রতিটি প্রান্তর আর মৃত্যুমুখে পতিত হচ্ছে রাফাবাসি। সারা বিশ্বের দৃষ্টি বর্তমানে রাফার দিকে। ইতিমধ্যে দখলদার বাহিনী রাফার হাসপাতাল গুলো ধ্বংস করেছে। রাফার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও মসজিদের অস্তিত্ব নেই। ধ্বংস্তুপের উপর দাঁড়িয়ে মসজিদের কার্যক্রম চলছে। গতকাল আল জাজিরা টেলিভিশন একাধিক ধ্বংস হওয়া মসজিদের ধ্বংস স্তুপের উপর দাঁড়িয়ে এক ফিলিস্তিনিকে আজান দিতে দেখা যাওয়ার সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এবং ধ্বংস স্তুপের উপর দাঁড়িয়ে আজান দেওয়ার দৃশ্য প্রত্যক্ষ করছে বেশ কিছু ফিলিস্তিনি মুসুল্লি ও শিশুরা। ফিলিস্তিনি যে শিশু এই ভূখন্ডে নিচ্ছে এবং বেড়ে উঠছে সেও দেখতে দেখতে বড় হচ্ছে দখলদার ইসরাইলি বাহিনীর নিষ্ঠুরতা, নির্মমতা আর তাই শিশু জীবন হতেই ফিলিস্তিনি শিশুরা প্রতিবাদী, বিদ্রোহী এবং যুদ্ধ মনোভাবের বীজ বপন করছে। ফিলিস্তিনি শিশুরা দখলদার বাহিনীর অত্যাধুনিক অস্ত্রের মুখে কিভাবে পাথর চুড়ে তাদের বেঁচে থাকার ও নিজ ভূ-খন্ড রক্ষার যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ছে এমন অভাবনীয় দৃশ্য বিশ্ববাসি দেখছে। গত দুই দিন পর্যন্ত গাজায় ত্রান বাহি যানবাহন প্রবেশে বাঁধা দিয়েঢ দখলদার ইসরাইলি বাহিনী। দখলদার ইসরাইলঃ কাতারে প্রতিনিধি পাঠিয়ে গাজায় যুদ্ধ বিরতির প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করছে অন্যদিকে গাজার রাছা, উত্তর ও পশ্চিম এলাকাতে ব্যাপক হামলা পরিচালনা করছে। অন্যদিকে হামাস যোদ্ধারা প্রতিমুহুর্তে প্রতিরোধ হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। গতকাল হামাসের পক্ষ হতে বলা হয়েছে ইসরাইল বাহিনীর ব্যাপক হামলার মুখে আবারও একপন বন্দীর নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। হামাসের অন্যতম মুখপত্র আবু ওযবাইদা তাদের নিজস্ব টেলিগ্রাম পোষ্টে বিবিৃতির মাধ্যমে জানিয়েছে দখলদার বাহিনীর বিমান হামলায় এক ইসরাইলি পন বন্দীর মৃত্যু হয়েছে। ইসরাইলের হামলার মুখে তাদের হাতে আটক পন বন্দীদের জীবন পিবন্ন হওয়ার উপক্রম ঘটেছে। হামাসের হাতে আটক আরও এক ইসরাইলির নিহত হওয়ার ঘটনায় এবং পন বন্দীদের মক্ত করতে না পারার প্রতিবাদে গতকাল ইসরাইলের রাজধানী তেল আবিবে হাজার হাজার ইসরাইলিরা বিক্ষোভ করেছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় গতকালের বিক্ষোবে কয়েক হাজার ইসরাইলির অংশ গ্রহন ছিল। বিক্ষোভকারীরা বিভিন্ন ধরনের ব্যানার ও প্লাকার্ড বহন করছিল। অন্যান্য বছরের বিক্ষোভ কেলমাত্র পন বন্দীদের মুক্তির বিষয়ে সীমাবদ্ধ থাকলেও এবারের বিক্ষোভে ইসরাইলিরা দেশটির প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুকে পদত্যাগের আহাবান জানান। এদিকে চীন এবার গাজায় হামলা ও ফিলিস্তিনিদের হত্যার বিষয়ে কঠোর ভাষায় বক্তব্য প্রদান করেছে। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ হতে বলা হয়েছে স্বাধীন ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র ব্যতিত এই অঞ্চলে শান্তী আসবে না। ইসরাইলের ঘনিষ্ঠমিত্র হিসেবে পরিচিত যুক্তরাষ্ট্র ইসরাইলের অব্যাহত বিমান হামলা ও ফিলিস্তিনিদের হত্যার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বলেছে অবিলম্বে ইসরাইলকে সব ধরনের হামলা ও হত্যা বন্ধ করে যুদ্ধ বিরতির পক্ষে অবস্থান নেওয়া উচিৎ। ইতিপূর্বে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্র মন্ত্রী একাধিকবার ইসরাইলিকে যুদ্ধ বিরতির প্রস্তাব অনুমোদনের আহবান জানিয়েছেন। গাজায় জীবন মৃত্যুর মাঝে ও আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গনে প্রানের স্পন্দন ঘটেছেন। গত সাত অক্টোবরের পর থেকে ইসরাইলি সেনা বাহিনী ও পুলিশ আল আকসা মসজিদ এলাকায় মুসুল্লীদের যে প্রবেশ করতে বাঁধা প্রদান করে আসছিল কিন্তু বর্তমান সময়ে আল আকসা মমজিদের নামাজ আদায় করছে ফিলিস্তিনিরা। গতকাল কাতার ভিত্তিক আল জাজিরা টেলিভিশন আল আকসা মসজিদ চত্বরে শুক্রবারের জুম্মার নামাজ আদায়ের একটি সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে অন্তত বিশ পঁচিশ হাজার ফিলিস্তিনি মুসুল্লি আল আকসা মসজিদ চত্বরে নামাজ আদায় করছে। এদিকে খান ইউনিসের আল নাসের হাসপাতালে অভিযান অব্যাহত রেখেছে দখলদার বাহিনী, গতকালও হাসপাতালটির স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ ছিল, চিকিৎসাধীন রোগীদের বড় অংশ হাসপাতাল ছেড়ে চলে গেছে। গাজায় যে কয়টি হাসাপাতালের অস্তিত্ব বিদ্যমান তার মধ্যে আল নাসের অন্যতম। এই হাসপাতালেরর অভ্যন্তরে কয়েকটি গণ কবরের অস্তিত্ব পরিলক্ষিত হয়েছে। পুরো গাজা ক্ষুধায় কাতর খাদ্যাভাবে জীবন বিপন্ন গাজা বাসির। এদিকে গতকাল মার্কিন জোট ইয়েমেনের হুতি অবস্থান গুলোতে আবারও হামরা চালিয়েছে। অন্যদিকে হিজবুল্লাহ যোদ্ধারা তাদের অঙ্গীুকারকে রক্ষা করেছে। গতকালও ইসরাইলের ভূ-খন্ডে ক্ষেপনাস্ত্র ও রকেট হামলা চালিয়েছে ইরান সমর্থিত এই সংগঠনটি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com