রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৪৩ অপরাহ্ন

গাজায় খাদ্য ঢুকতে দিচ্ছে না ইসরাইল

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

দৃষ্টিপাত ডেস্ক ॥ দখলদার ইসরাইলি বাহিনীর গণহত্যা চলছে তো চলছেই। গাজার সর্বত্র ইসরাইলি বাহিনীর তান্ডব আর হত্যাযজ্ঞ ফিলিস্তিনিদেরকে নিশ্চিহৃ করার মাধ্যম, আন্তর্জাতিক বিশ্বের প্রতিবাদ যেমন চলছে অনুরুপ ভাবে বিশ্বের ক্ষমতাধর ও ইসরাইলি মিত্র দেশ হিসেবে পরিচিত কোন কোন দেশ ইসরাইলের গণহত্যা ও তান্ডবকে সমর্থন ও সহযোগিতা করছে। গাজার সর্বত্র অন্ধকর আর দুভিক্ষের ছোয়া। যে গাজা শহর ছিল প্রানের স্পন্দন বর্তমান সময় গুলোতে সেই গাজা শ্মশমানের নিরাবতা। সর্বত্র কবর আর আহতদের আত্মচিৎকার যেমন খাদ্য নেই অনুরুপ ভাবে নেই সুচিকিৎসা। সারা বিশ্বের তথা বিশ্বমানবতা গাজার গণহত্যা আর ভয়াবহ তান্ডবে কাঁদছে তো কাঁদছেই। বিশ্ব মানবতার অশ্র“সিক্ত নয়ন গাজার রাফায়। এই শহরে সপ্তাহ ব্যাপী চলছে হত্যা আর রাফাকে দখলদার বাহিনী এমন ভাবে ঘেরাও করছে যে রাফা শহর থেকে কোন অধিবাসি বের হতে পাচেছ না। নির্ঘাত মৃত্যুই তাদেরকে মেনে নিতে হচ্ছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তুররস্ক, সৌদি আরব সহ বিভিন্ন দেশ রাফা অভিযান বন্ধের আহবান জানালে ও দখলদার বাহিনী সেটি মানছে না। গতকাল খান ইউনিসের বৃহত্তম হাসপাতাল আল নাসেরের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে হামলা শুরু করেছে দখলদার বাহিনী। কাতার ভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আল জাজিরা জানিয়েছে আল নাসের হাসপাতালের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার ফলে অন্তত দশজন চিকিৎসাধীন রোগী অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু বরন করেছে। দখলদার বাহিনীর ভাষ্য আল নাসের হাসপাতালের অভ্যন্তরে হামাস যোদ্ধারা অবস্থান করছে এবং হাসপাতাল কমপ্লেক্স এর অভ্যন্তরে বন্দীদের কে লুকিয়ে রেখেছে। গাজার আল নাসের হাসপাতালেই শেষ কথা নয় দখলদার বাহিনী আল নাসেরের পাশাপামি অন্তত ত্রিশটি হাসপাতালে হামলা চালিয়েছে। এদিকে লোহিত সাগরে হুতি যোদ্ধারা আবারও জাহাজে হামলা চালিয়েছে। গতকাল পশ্চিমা মিডিয়ার খবরে বলা হয়েছে বৃটিশ তেলবাহি জাহাজে হুতি যোদ্ধারা ক্ষেপনাস্ত্র হামলা পরিচালনা করে এবং উক্ত ক্ষেপনাস্ত্র হামলা জাহাজটি অগুন ধরে যায়। এদিকে গতকাল দখলদার ইরসাইলি বাহিনী খান ইউনিসের আল নাসের হাসপাতালে গুলি করে চিকিৎসাধীন ফিলিস্তিনিদের হত্যার পর ফিলিস্তিনিদের মরদেহ নিয়ে যায়। সেখান হতে অন্তত পঞ্চাশ জনকে গ্রেফতার করেছে। হামাসের সশস্ত্র শাখা আল কাসেম ব্রিগেড নিজস্ব টেলিগ্রাম বার্তায় বলা হয়েছে ইসরাইলের সাথে তখণই কেবল মাত্র যুদ্ধ বিরতি ও বন্দী বিনিময় হবে যখন তারা গাজা হতে ইসরাইলি সেনাদের প্রত্যাহার করবে এবং সব ধরনের হামলা বন্ধ করবে। হামাসের পক্ষ হতে আরও বলা হয়েছে ইসরাইলের কারাগারে আটক এবং দীর্ঘমেয়াদী সাজা ভোগকারী ফিলিস্তিনিদেরকে মুক্তি দিতে হবে। ইসরাইল চাইছে কিছু সংখ্যক ফিলিস্তিনিকে মুক্তির বিনিময়ে বন্দীদেরকে মুক্ত করন কিন্তু হামাস তা প্রত্যাখান করেছে। এদিকে গাজার উত্তর ও দক্ষিন এলাকাতে গতকালও দখলদার বাহিনী ব্যাপক ভাবে হামলা চালিয়েছে। রেডক্রসের সদস্যদেরকে গতকালও উত্তর ও পশ্চিম এলাকার ধ্বংস প্রাপ্ত হাসপাতাল ও বসতবাড়ীর অভ্যন্তর হতে মৃত ফিলিস্তিনিদের লাশ উদ্ধার করে সমাহিত করতে দেখা গেছে। রাফা শহরের সীমান্ত এলাকাতে মিমরে সুবৃহৎ দেওয়াল তুলতে শুরু করেছে বলে গতকাল আল জাজিরা টেলিভিশনের খবরে এমন তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। রাফা শহরে হামলার পাশাপাশি গতকাল গ্রেফতার অভিযান পরিচালনা করেছে দখলদার বাহিনী। ইউরোপীয় ইউনিয়ন ভূক্ত দেশগুলো ইসরাইলকে অস্ত্র সবরাহ না করার সিদ্ধান্ত গ্রহনের পর এবার গতকাল সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে যে ইসরাইলকে কোন ভাবে আর্থিক সহযোগিতা করবে না। ইসরাইলের অর্থনীতিতে দীর্ঘ বছর যাবৎ উরোপীয় ইউনিয়ন বিশেষ ভূমিকা রেখে আসিিছল। গাজা অভিমুখে আটাবাহী একটি বড় ত্রানের ট্রাক আটকে দিয়েছে ইসরাইল বাহিনী। গাজা অভ্যন্তরে খাদ্যভাব এতটুকু প্রকট আকার ধারন করেছে যে কোন ত্রানবাহী যানবাহন প্রবেশ করতে দেখলে মুহুর্তের মধ্যে ক্ষুধার্থ ফিলিস্তিনিরা উক্ত যানবাহন হতে খাদ্য সামগ্রী নিচ্ছে। এদিকে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে গত সাত অক্টোবরের পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত ইসরাইলি বাহিনীর হামলায় অন্তত উনত্রিশ হাজার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী ও শিশু। হিজবুল্লাহ যোদ্ধারা গতকাল দিনরাতে ইসরাইলের সীমান্ত সংলগ্ন এলাকাগুলোতে ব্যাপক হামলা চালিয়েছে। হামলার সময়ে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ সাইরেনের আওয়াজ তুলে নাগরিকদেরকে সতর্ক করতে থাকে। ইসরাইলের কারাগারে আটক ফিলিস্তিনিদের উপর নির্মম নির্যাতন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে হামাস। সংগঠনিটর প্রধান ইসমাইল হানিয়া বলেছে কোন অবস্থাতেই হামাস ফিলিস্তিনি ছেড়ে যাবে না। আমরা হয়তো মরবো নতুবা মারবো। সর্বশেষ খবরে জানাগেছে মিশর ও কাতার আবারও হামাস ও ইসরাইলের মধ্যে যুদ্ধ বিরতি নিয়ে আলোচনা শুরু করেছে আল জাজিরা জানিয়েছে ইতিমধ্যে কাতারে হামাসা, ইসরাইল সহ পক্ষ গুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত হয়ে আলোচনা শুরু করেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com