বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
সুন্দরবন সুন্দর নেই, ভাল নেই ঃ দায়িত্বশীলদের দায়িত্বহীনতা \ বনখেকোরা বৃক্ষ নিধন ও জীব বৈচিত্র্য নিধন করছে আওয়ামী লীগ বিরোধী অপপ্রচারের জবাব দিতে ছাত্রলীগের প্রতি আহŸান প্রধানমন্ত্রীর কৃষকরা সম্মিলিত ভাবে কাজ করলে দেশের মানুষের খাদ্যের অভাব হবেনা \ বীজ-সার বিতরণ উদ্বোধন কালে এমপি রবি সাতক্ষীরায় অপদ্রব্য মিশিয়ে নকল দুধ তৈরীর ঘটনায় ১ ব্যক্তিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা টাইব্রেকারে স্পেনকে বিদায় করে মরক্কোর ইতিহাস আজ সাতক্ষীরা মুক্ত দিবস দক্ষিণ কোরিয়াকে বিধ্বস্ত করে কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিল আশাশুনি উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে গ্রাম ডাঃ কল্যাণ সমিতির মতবিনিময় বাংলাদেশ এখন আদর্শ বিনিয়োগের কেন্দ্র -প্রধানমন্ত্রী বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ বিশ্বের রোল মডেল \ মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২

মীর আবু বকর \ বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ দুটি একই সূত্রে গাঁথা। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে স্বাধীন বাংলাদেশ পেতাম না। ১৯৪৭ সালে ভারত পাকিস্তান ভাগ হয়েছিল। তখন পশ্চিম পাকিস্তানের মানুষ মুসলিম দেখে ভোট দেইনি কিন্তু পাকিস্তানের মানুষ ভোট দিয়েছিল। আমাদের মনের দাবি ছিল মায়ের ভাষা বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার কিন্তু তারা সেটি অস্বীকৃতি জানায়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির মুক্তির জন্য ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে যাত্রা শুরু করেন। পাকিস্তানিদের ২৩ বছর শাসন আমলে বঙ্গবন্ধুকে ১৪ বছর জেল খাটতে হয়েছে। তিনি জেলখানায় থেকেও বাঙালির মুক্তির কথা ভেবেছেন। গতকাল দুপুরে সাতক্ষীরা জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে জেলা প্রশাসন আয়োজিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময় কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি এসব কথা বলেন। জেলা প্রশাসক মোঃ হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আরো বলেন, পাকিস্তানের শাসক গোষ্ঠী বঙ্গবন্ধুকে দমন করার জন্য আগরতলা মামলার আসামি করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে আ’লীগের নেতৃত্বে ১৯৭০ সালে সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বহু সংগ্রামের মাধ্যমে বাঙালি জাতি ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিল। তিনি শুধু বাঙালির জন্য স্বপ্ন দেখিনি স্বপ্নটি স্বাধীনতার মাধ্যমে বাস্তবায়ন করেছেন। কিন্তু নির্মম ইতিহাস স্বাধীনতার সাড়ে তিন বছরের মাথায় বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করা হলো। তারা চেয়েছিল আওয়ামী লীগকে চিরতরে নিশ্চিহ্ন করতে তাদের সেই চেষ্টা সফল হয়নি। স্বাধীনতার পরবর্তীতে ২২ বছর বাংলাদেশের রাষ্ট্র ক্ষমতা পরিচালনা করেছে আ’লীগ। এ সময় দেশে এমন কোন সেক্টর নয় যেখানে উন্নয়ন হয়নি। আপনারা নিজেদের স্থান থেকে নির্ধারণ করুন এই সময়ে দেশে কি পরিমান উন্নয়ন হয়েছে আর তাদের সময় কি হয়েছিল। তারা চাইনি বাংলাদেশ একটি সুখী সমৃদ্ধ অর্থনীতিতে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে গড়ে উঠুক। বিএনপি জামাত রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকলে জনগণের টাকা মেরে খায়। তারা এতিমের টাকা লুণ্ঠন করে মানুষের উন্নয়ন নিয়ে ছিনিমিনি খেলে। তারা বাংলাদেশকে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হিসাবে বিশ্বের মাঝে পরিচয় করেছিল। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের মধ্যে রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। ভবিষ্যতে আরো উন্নয়ন হবে। আমাদের সরকারের উন্নয়ন প্রকল্প থেমে নেই। বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র। সাংবিধানিক নিয়ম অনুযায়ী এখানে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আ’লীগ সরকার দেশের সংকটময় সময়ে জনগণের পাশে ছিলেন, আছেন। এদেশের জনগণ আগামী নির্বাচনে আ’লীগকে সমর্থন দেবে। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা বীর মোস্তাক আহমেদ রবি, পুলিশ সুপার কাজী মোঃ মনিরুজ্জামান, জেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা একে ফজলুল হক। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদের সভাপতি সৈয়দ ফিরোজ কামাল শুভ্র, প্রেসক্লাব সভাপতি মমতাজ আহমেদ বাপ্পী, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সদস্য সচিব লায়লা পারভিন সেজুতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিক আহমেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মফিজ উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা দেবরঞ্জন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হান্নান। এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমা তুজ জোহরা, জেলা আ’লীগের সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, শেখ সাহিদ উদ্দিন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ আছাদুজ্জামান বাবু, জেলা তথ্য অফিসার জাহারুল ইসলাম, আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আক্তার হোসেন, জেলা মহিলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড. ফরিদা আক্তার বানু, সাঃ সম্পাদক ও জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান জ্যোৎস্না আরা সহ প্রশাসনিক কর্মকর্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধা, আ’লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এর পূর্বে সকাল ১০টায় শহরের সিটি কলেজ মোড়ে সদর উপজেলার নবনির্মিত মুক্তিযোদ্ধা ভবন কমপ্লেক্স উদ্বোধন করেন মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি সহ অতিথিবৃন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com