মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৪৬ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশ এবার শূন্য হাতে ফিরতে চায় না

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২৩

এফএনএস স্পোর্টস: নারীদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ মানেই দীর্ঘশ্বাসের এক নাম। হারের চক্রে ঘুরপাক খেতে খেতে ক্লান্ত সালমা, জাহানারা, জ্যোতিরা। ২০১৬, ২০১৮ ও ২০২০ সালে কোন আসরেই ম্যাচ জিততে পারেনি। ২০১৪ সালে কেবল নিজেদের মাটিতে শ্রীলঙ্কা ও আয়ারল্যান্ডকে হারিয়েছিল। এরপর প্রতি আসরে অংশগ্রহণ করে খালি হাতেই ফিরেছে। সামনে আরেকটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থাকায় এবারও বিব্রতকর পরিসংখ্যানগুলো সামনে আসছে। তবে দৃঢ়চেতা বাংলাদেশ এবার শূন্য হাতে ফিরতে চায় না মোটেই। আগামী ৯ ফেব্র“য়ারি থেকে দক্ষিণ আফ্রিকায় শুরু হবে নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিতে সালমা-জ্যোতিরা একটু আগেভাগেই দেশ ছাড়ছে। সোমবার সন্ধ্যায় দেশ ছাড়ার আগে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে অধিনায়ক নিগার সুলতানা বলেছেন, ‘অনেকদিন আগে একটা ম্যাচ জিতেছি…।আমাদের চতুর্থ আর অন্যান্যের হয়তো এটা পঞ্চম বিশ্বকাপ। তো সবারই ইচ্ছে এবার যেন ওই রেকর্ডটা ব্রেক করি। যাদের সঙ্গে এবার খেলা, গ্র“প পর্বে দুই তিনটা ম্যাচ বের করে নিয়ে আসা সম্ভব বলে আমার মনে হয়। শুধু একটা মোমেন্টাম দরকার।’ দক্ষিণ আফ্রিকার কন্ডিশন জয় করতে খুলনায় নিবিড় অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ। এই অনুশীলন কাজে দেবে বলে মনে করেন অধিনায়ক, ‘খুলনার উইকেট পেস বোলিং সহায়ক, ওটা দক্ষিণ আফ্রিকায় অনেক বেশি সাহায্য করবে। আপনারা জানেন আমরা ওখানে খুব ভালো উইকেট পাবো। স্পোর্টিং উইকেটই কিন্তু একটু বাউন্স থাকবে, যেটা ব্যাটেও খুব ভালো আসে। এই কারণেই খুলনায় যাওয়া। প্রস্তুতি ম্যাচগুলো আমরা ছেলেদের সঙ্গে খেলেছি। পেসের বিপক্ষে হয়তো ভুগতে হয়েছে কিন্তু এই চ্যালেঞ্জগুলোর জন্য তা পরের খেলায় আমাদের সাহায্য করবে।’ স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হারলেও দক্ষিণ আফ্রিকার কঠিন কন্ডিশনে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের নারী ক্রিকেটাররা দারুণ পারফর্ম করেছে। ওই দলের চারজন ক্রিকেটার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলেও সুযোগ পেয়েছেন। যারা দক্ষিণ আফ্রিকাতেও দুর্দান্ত ফর্মে আছেন। এই নবীন ক্রিকেটাদের কাছ থেকেই অনুপ্রেরণা নিচ্ছে বাংলাদেশ, ‘ওরা ইতোমধ্যে ম্যাচ খেলেছে। আমাদের চেয়ে ওরা ভালো ছন্দে আছে। মারুফাকে দেখেছি নিয়মিত ভালো বল করেছে, নিউজিল্যান্ডেও ভালো পারফর্ম করেছে। দিশা তো ভালো করছে। সব মিলিয়ে যে চারজনকে নেওয়া হয়েছে. সবাই ভালো করছে। যেহেতু ওরা ওখানে আছে, আমার কাছে মনে হয় একাদশে সুযোগ পেলে দলকে সাহায্য করতে পারবে। আমার কাছে এটাও মনে হয় ওরা যেহেতু ভালো করছে, তাদের কাছ থেকে অনুপ্রেরণা নিলে অনেক ভালো হবে।’ বিশ্বকাপের আগে ভালো প্রস্তুতির জন্য মেয়েদের প্রস্তুতির সেরা মঞ্চ দিচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিসিবি। আইসিসির অধীনে অনুশীলন শুরুর ১০ দিন আগেই তাদের দক্ষিণ আফ্রিকায় পাঠানো হচ্ছে। নিজেদের খরচে অনুশীলনের পাশাপাশি ম্যাচও আয়োজন করছে তারা। মূল মঞ্চে নামার আগে ৪টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা হবে। দুটি নিজেদের খরচে, বাকি দুটি আইসিসির আয়োজনে। আগামী ৩১ জানুয়ারি ও ২ ফেব্র“য়ারি আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবেন সালমা-জ্যোতিরা। আইসিসির আয়োজনে ৬ ও ৮ ফেব্র“য়ারি তাদের প্রতিপক্ষ পাকিস্তান, ভারত। বিশ্বকাপে বাংলাদেশ খেলবে ‘এ’ গ্র“পে। যেখানে প্রতিপক্ষ হিসেবে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলঙ্কা। ১২ ফেব্র“য়ারি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন। এরপর ১৪ ফেব্র“য়ারি অস্ট্রেলিয়া, ১৭ ফেব্র“য়ারি নিউজিল্যান্ড ও ২১ ফেব্র“য়ারি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচ খেলবে। বাংলাদেশের ১৫ সদস্যের বিশ্বকাপ দল : নিগার সুলতানা জ্যোতি (অধিনায়ক), মারুফা আক্তার, দিলারা আক্তার, ফাহিমা খাতুন, সালমা খাতুন, জাহানারা আলম, শামীমা সুলতানা, রুমানা আহমেদ, লতা মণ্ডল, স্বর্ণা আক্তার, নাহিদা আক্তার, দিশা বিশ্বাস, মুর্শিদা খাতুন, রিতু মনি, ও সোবহানা মোস্তারি। স্ট্যান্ডবাই : রাবেয়া, সানজিদা আক্তার মেঘলা, ফারজানা হক পিংকি ও শারমীন আক্তার সুপ্তা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com