মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৭:২৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
সাতক্ষীরার ঘরে ঘরে চোখ ওঠা রোগের প্রাদুর্ভাব \ আতঙ্ক নয় \ সাবধানতা ও সতর্কতা জরুরী দূর্গা উৎসব বাঙ্গালীর সার্বজনীন উৎসবে পরিনত হয়েছে -খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি ড. খন্দকার মহিদ উদ্দীন ইভিএমে আঙুলের ছাপ না মিললে ভোটদানের বিষয়ে আইনে সংশোধনী আসছে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির নিয়মিত মাসিক সভা ভার্চুয়ালী অনুষ্ঠিত ঢাকার পথে প্রধানমন্ত্রী অষ্টমীতে সাতক্ষীরার মন্ডপে মন্ডপে উপচে পড়া ভিড় \ আজ মহানবমী সাতক্ষীরায় বিজিবির অভিযানে অস্ত্র সহ আটক ১ সকল ধর্মের মানুষ শান্তিপূর্ণ ভাবে ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করছে -আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম সাতক্ষীরায় বিশ্ব বসতি দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত দেবহাটায় উৎসবমূখর পরিবেশে চলছে দূর্গোৎসব

ভ‚-চুম্বকীয় ঝড়ে কক্ষপথ থেকে ছিটকে গেল ৪০টি স্যাটেলাইট

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

এফএনএস বিদেশ : যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক অ্যারোস্পেস কোম্পানি স্পেসএক্স-এর ৪০টি উচ্চগতির ইন্টারনেট স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পরে ভ‚-চুম্বকীয় ঝড়ের কারণে কক্ষপথ থেকে ছিটকে পড়েছে। তবে, এগুলো বায়ুমন্ডলে পুড়ে যাওয়ায় পৃথিবীর জন্য হুমকি খুব সামান্য। স্পেসএক্স-এর বরাতে সংবাদমাধ্যম দ্য নিউইয়র্ক টাইমস এ খবর জানিয়েছে। সূর্যের করোনা থেকে উচ্চশক্তির বিকিরণ পৃথিবীর বায়ুমন্ডলে আছড়ে পড়লে ভ‚-চুম্বকীয় ঝড় (জিওম্যাগনেটিক স্টর্ম) সৃষ্টি হয়। এর ফলে বায়ুমন্ডলের ঊর্ধ্বস্তরে স্থিতি ব্যাহত হয়, যা কক্ষপথে থাকা বস্তুকে নিচে টেনে নিয়ে আসে। স্পেসএক্স-এর উচ্চগতির ইন্টারনেট স্যাটেলাইট প্রতিষ্ঠান স্টারলিংক গত বৃহস্পতিবার ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে সর্বশেষ ৪৯টি উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করে। এবং কক্ষপথের প্রাথমিক স্তরে পৃথিবী থেকে ২১০ কিলোমিটার ওপরে স্থাপন করে। পরে আরও উঁচুতে স্থাপনের আগে স্যাটেলাইটগুলো চেকআপের জন্য সেখানে রাখা হয়। এরপর গত শুক্রবার ভ‚-চুম্বকীয় ঝড়ে স্যাটেলাইটগুলো কক্ষচ্যুত হয়। ধনকুবের এলন মাস্কের কোম্পানি স্পেসএক্স গত মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে এ কথা জানায়। বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এ ঝড়ের কারণে আমাদের বায়ুমন্ডলের উষ্ণতা বৃদ্ধি পায় এবং নিম্ন কক্ষপথে বায়ুমন্ডলের ঘনত্ব বৃদ্ধি পায়। স্যাটেলাইটগুলোতে থাকা জিপিএস তথ্যে জানা যায়, ঝড়ের গতি এবং বায়ুমন্ডলীয় টানের তীব্রতায় কক্ষপথ ৫০ শতাংশের বেশি প্রসারিত হয়।’ এ অবস্থায় স্টারলিংক উপগ্রহগুলোকে ভ‚-চুম্বকীর টান থেকে আশ্রয় নিতে একটি নিরাপদ মোডে থাকার বার্তা পাঠায়, যাতে এগুলো কাগজের সিটের মতো প্রান্তের দিকে উড়ে যায়। কিন্তু, এ জটিল অনাকাক্সিক্ষত কৌশল গ্রহণ সত্তে¡ও বেশির ভাগ স্যাটেলাইট কক্ষপথ বাড়াতে ব্যর্থ হয়। এবং প্রায় ৪০টি পুনরায় পৃথিবীর বায়ুমন্ডলে প্রবেশ করবে অথবা এরইমধ্যে প্রবেশ করেছে। স্পেসএক্স জোর দিয়ে বলেছে, উপগ্রহগুলোর মধ্যে সংঘর্ষের কোনো ঝুঁকি নে। বায়ুমন্ডলে এগুলো পুড়ে যাবে, পৃথিবীতে কোনো ধ্বংসাবশেষ ছুটে আসার আশঙ্কা নেই। তবে, নাসা এখনও এ বিষয় কোনো মন্তব্য করেনি। স্পেসএক্স ২০১৯ সালের মে থেকে এ পর্যন্ত দুই হাজারের বেশি স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছে। এর মধ্যে দেড় হাজারের বেশি বর্তমানে সক্রিয় রয়েছে এবং এগুলো প্রায় বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেট সুবিধা দিচ্ছে। কোম্পানি স¤প্রতি আরও ১২ হাজার স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পরিকল্পনা করেছে। পৃথিবী থেকে এক হাজার ২০০ মাইল দূর পর্যন্ত প্রায় চার হাজার স্যাটেলাইট সক্রিয় রয়েছে। এবং স্পেসে রকেট ও প্রোবের ১৫ হাজার টুকরো ধ্বংসাবশেষ ভেসে বেড়াচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com