রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৪১ অপরাহ্ন

মধ্য গাজায় বর্বর হামলায় দখলদার বাহিনী

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

দৃষ্টিপাত ডেস্ক ॥ রাফা শহরের পর এবার দখলদার ইসরাইলি বাহিনীর সদস্যরা মধ্য গাজায় বিমান হামলা শুরু করেছে। দখলদার বাহিনীর পক্ষ হতে গাজার মধ্য এলাকাতে হামলা পরিচালনা করা হবে না বলে ঘোষনা দেওয়া হলেও ইসরাইল কর্তৃপক্ষ তাদের অঙ্গীকার হতে পিছে ফিরেছে। কাতার ভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আল জাজিরা বলেছে গত দুই দিন যাবৎ ইসরাইলি বিমান বাহিনীর বিমান গুলো মধ্যগাজার আবাসিক ভবন গুলো লক্ষ্য করে ব্যাপক ভাবে বিমান হামলা শুরু করেছে। গতকাল একদিনে অন্তত শতাধীক নিরীহ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে দখলদার বাহিনী। এর মধ্যে মধ্য গাজাতেই কেবল চল্লিশ জনের নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। দখলদার ইসরাইল বাহিনীর হামলা হতে রক্ষা পেতে এবং হামলায় নিহতদের ফাঁকা বসতবাড়ীর নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ফিলিস্তিনি পুলিশ ও নিরাপত্তা কর্মিদের অবিলম্বে এলাকা ত্যাগ করার আহবান জানিয়েছেন। আল জাজিরাস্থ টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে ফিলিস্তিনি পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের উপর বিভিন্ন মুখি হামলা চালিয়েছে। জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের পক্ষ হতে আবারও উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয়েছে আগামী দিন গুলো গাজার বর্তমান পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে গাজায় মানবিক বিপর্যয়ের সর্বশেষ পর্যায়ে পৌছেছে। রয়টার্স পরিবেশিত খবরে বলা হয়েছে গাজায় আগামীতে আরও চুরাশি হাজার ফিলিস্তিনির নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটতে পারে আর এমন আশঙ্কা অমুলক নয়। গতকাল পর্যন্ত ইসরাইলি বাহিনীর হামলায় প্রায় ত্রিশ হাজার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও নিরাপত্তা পরিষদে যুদ্ধ বিরতির বিষয়ে ভেটো প্রদানের পর থেকে ইসরাইলি বাহিনী গাজার রাফার পাশাপাশি পুরো গাজা ুিসটিতে বিমান হামলা পরিচালনা করছে। পশ্চিমা মিডিয়ায় খবরে বলা হয়েছে নিশ্চিহৃ হওয়া উত্তরাঞ্চল ও খান ইউনিসের ধ্বংস স্তুপের মধ্যে ফিলিস্তিনিদের লাশের অস্তিত্ব পরিলক্ষিত হচ্ছে। আন্তর্জাতিক রেডক্রসের সদস্যরা নিহত ফিলিস্তিনিদের লাশ উদ্ধার করছে। এদিকে খান ইউনিসের অস্তিত্ব জানান দেওয়া আল নাসের হাসপাতালের অভ্যন্তরে গতকালও দখলদার ইসরাইলি বাহিনী অভিযান অব্যাহত রেখেছে। ইতিমধ্যে সেনারা হাসপাতালটির বিদ্যুৎসংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে যে কারনে আহতও চিকিৎসাধীন রোগীরা হাসপাতাল ত্যাগ করতে শুরু করেছে। গুরত্বর অসুস্থ রোগীদের অনেকে মৃত্যুবরন করেছে এবং অন্যত্র সরিয়ে নিয়েছে। রাফায় শহরের কোন হাসপাতালে চিকিৎসার সুযোগ নেই। রাফা শহরের অভিযানের বিরুদ্ধে সমগ্র বিশ্ব একাত্বতা প্রকাশ করেছেন। চীনের পাশাপাশি তুরস্কের পক্ষ থেকেও তীব্র সমালোচনা করা হয়েছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেছে ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট নেতানিয়াহু মধ্যপ্রাচ্যের কসাই। ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনজামিন নেতানিয়াহুর নির্দেশেই গাজায় হত্যাকান্ড চলছে। এদিকে মিশরের রাজধানী কায়রোতে হামাস ও ইসরাইলের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে আলোচনা চলছে। ইসরাইলের পক্ষ হতে স্থায়ী যুদ্ধ বিরতির বিপক্ষে অবস্থান নেওয়া হয়েছে অন্যদিকে হামাসের দাবী গাজায় স্থায়ী যুদ্ধ বিরতি ওগাজা হতে সেনা বাহিনী প্রত্যাহার যে কারনে যুদ্ধ বিরতির প্রস্তাব কার্যকর হচ্ছে না। একদিকে যুদ্ধ বিরতির প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা অন্যদিকে গাজায় পথে পথে দখলদার ইসরাইলি বাহিনীর বিমান হামলা ও হত্যাকান্ড এখানেই শেষ নয় ইসরাইলি বাহিনী মধ্য গাজা, খান ইউনিস,উত্তরাঞ্চলও রাফা শহরের নির্বিচারে নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিদেরকে গ্রেফতার করছে। হামাসের প্রতিরোধ হামলায় ব্যাপক ক্ষতির শিকারে পরিনত হচ্ছে ইসরাইলি বাহিনী। গতকাল আল আকসা হাসপাতালের চারিদিকে অবস্থান নিয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে যে কোন সময়ে আল আকসা হাসপাতালে অভিযান পরিচালিত করতে পারে। উল্লেখ্য ইতিপূর্বে ও আলআকসা হাসপাতালে দখলদার বাহিনী অভিযান পরিচালনা করে। গতকাল আল জাজিরা জানিয়েছে রাফা শহরের আরও একটি মসজিদ গুড়িয়ে দিয়েছে। এদিকে গতকালও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গাজায় ইসরাইলি হামলা ও গণহত্যার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়েছে। সর্বাপেক্ষা আলোচিত ঘটনার জন্ম দিয়েছে প্রাক্তন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারী ক্লিনটন, জার্মানীতে হামাস ইসরাইল যুদ্ধের বিষয়ে মন্তব্য করার সময় উপস্থিত হাজারো মানুষ হিলারীর বক্তব্যের প্রতিবাদ জানান এবং প্রাক্তন মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রীকে যুদ্ধপরাধী হিসেবে চিৎকার শুরু করে। এদিকে হিজবুল্লাহ ও হুতিদের কোন অবস্থাতেই নির্মূল ওনিয়ন্ত্রন করতে পারছে না মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহ তার মিত্ররা, ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ হতে ও বলা হয়েছে ইসরাইলের উচিৎ গাজায় হামলা ও হত্যা বন্ধ করা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com