সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
পাখি মানব সমাজের ঘনিষ্ঠ \ প্রকৃতি প্রেমী \ দেশে আসছে অতিথি পাখি \ পাখি নিধন বন্ধ হোক \ ব্যাঙ, কুচে হারিয়ে যাচ্ছে সকল ধর্মের মূল কথা মানবসেবা মানবাধিকার পরিস্থিতির উপর জেলা পর্যায়ের ডায়ালগ সভায় -জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার মোঃ মনিরুল ইসলাম সাতক্ষীরায় যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপন প্রস্তুতি সভা কানাডাকে উড়িয়ে শীর্ষে ক্রোয়েশিয়া বেলজিয়ামকে স্তব্ধ করে মরক্কোর দুর্দান্ত জয় যুব সমাজকে মাদক ও জঙ্গীবাদ থেকে দূরে রাখতে হবে -পুলিশ সুপার কাজী মনিরুজ্জামান ব্যাংকিং খাতের সবশেষ অবস্থা জানতে চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী আইনজীবী সহকারীরা বিচারঙ্গনের প্রাণ ঃ সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ কবি শেখ মফিজুর রহমান কোস্টারিকার সঙ্গে পারলো না জাপান রেকর্ড গড়েই আর্জেন্টিনাকে জয় এনে দিলো মেসি

মাহে রমযানের সওগাত

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শনিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২২

এফএনএস : আজ রমযান মাসের ২৮তম দিন। আর দুএকদিনের মধ্যে আমাদের কাছ থেকে বিদায় নেবে পবিত্র এ মাস রমযান। রহমত মাগফিরাত ও নাজাতের এই পবিত্রতম দিনগুলো শেষ হয়ে যাচ্ছে কিন্তু আমরা কী অর্জন করলাম। তা-ই এখন হিসাব নিকাশের পালা। রাসূল (সা:) বলেছেন, ‘‘যে ব্যক্তি রমযান মাস পেল অথচ নিজের গুনাহগুলো মাফ করাতে পারলো না তার চেয়ে হতভাগা আর কেউ নাই।’’ রমযানের শেষ পর্যায়ে এসে তাই আমাদের পর্যালোচনা করা দরকার ঈমান ও ইহতিসাবের সাথে রোযা রাখতে পেরেছি কি না। রোযা থেকে কতটুকু ফায়দা আমি নিতে পেরেছি। মানুষ অপরাধ করলে শাস্তি দেয়া হয়। উদ্দেশ্য এ শাস্তিকে ভয় করে সে যেন আর এ রকম অপরাধ না করে। অনুরূপভাবে তাকওয়ার গুণ শিখানোর জন্য আল­াহ রোযা ফরয করেছেন। দীর্ঘ এক মাস আমরাও প্রচেষ্টা চালিয়েছি, রোযা রেখেছি। এখন প্রশ্ন হলো: পানাহার ইত্যাদি ত্যাগ করে দীর্ঘ একটি মাস রোযা রাখার পরও যদি তাকওয়ার গুণাবলী তৈরি না হয় তাহলে ঐ রোযা কতটুকু কাজে আসবে। আল­াহ বলেছেন, ‘‘আমি কুরআনকে বুঝা সহজ করে দিয়েছি, আছো কি কোন গবেষক?’’ এ রমযান মাসের মর্যাদা, শবে কদরের মর্যাদা আল কুরআনের কারণেই। কিন্তু আমরা অনেক চেষ্টা সাধনা করে জীবনের সাফল্যর জন্য অনেক কিছু করে থাকি। কিন্তু পবিত্র কুরআন বুঝার জন্য কোন প্রকার চেষ্টাই করি না। এই কুরআন নাযিলের পবিত্র মাসে পবিত্র কুরআন শিক্ষা ও বুঝার জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে। আল­াহ রাববুল আলামীন সূরা আল বাকারাতে বলেছেন, এই কুরআন মুত্তাকীদের জন্য হেদায়াত। মুত্তাকী তারাই যারা কুরআন থেকে হেদায়ত পেতে চায় এবং এ আকাক্সক্ষা থেকেই তারা কুরআন অধ্যয়ন করে। কুরআন নিশ্চয়ই তাদেরকে সঠিক ও সত্য পথ সিরাতাল মুসতাকীমের পথ প্রদর্শন করবে। কিন্তু যারা হেদায়াত পাবার উদ্দেশ্যে পড়বে না তারা হেদায়াত পাবে না। যেমন পাশ্চাত্য জগতে অনেক পন্ডিত ব্যক্তি মুসলমানদের সম্পর্কে জানা, কুরআন সম্পর্কে জানা অথবা কোন গবেষণার জন্য অথবা মুসলমানদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের কৌশল তৈরির জন্য কুরআন পড়লে নিঃসন্দেহে কুরআন তাদের হেদায়াত দিবে না, সত্য পথের সন্ধান পাবে না। এই রমযান মাস কুরআন নাযিলের মাস। কুরআনের কারণেই এ মাসের মর্যাদা হাজার মাসের চেয়েও উত্তম হয়েছে। আর কুরআনকে যতদিন মুসলমানরা আঁকড়ে ধরেছিল ততদিন তারা সফল হয়েছিল। কেউ তাদের পদানত করতে পারেনি। এজন্য কুরআন মুসলিম জাতির বেঁচে থাকার দলিল। এ রমযানে আমরা কুরআনকে যেভাবে পড়েছি, রমযান শেষে বাকি দিনগুলোতে কুরআনকে বুঝা, মানা ও প্রতিষ্ঠার জন্য প্রচেষ্টা চালাতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com