বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ১২:০৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
লিগ্যাল এইডের সেবা প্রদানে আন্তরিক ভাবে কাজ করতে হবে \ চাঁদ মোহাম্মদ আব্দুল আলিম আল-রাজী, জেলা ও দায়রা জজ সাতক্ষীরা আমার সময়ে হত্যা সহ চাঞ্চল্যকর সকল ঘটনার আসামীকে দ্রুত সময়ের মধ্যে আটক করা হয়েছে \ সংবর্ধান প্রদান অনুষ্ঠানে বিদায়ী পুলিশ সুপার সরকার জ¦ালানিকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে -প্রধানমন্ত্রী ভূমি সেবা পেতে যেন কেউ ভোগান্তির শিকার না হয় \ দুর্নীতি মুক্ত ভূমি কার্যক্রম বিষয়ক সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজ পবিত্র আশুরা সাতক্ষীরায় মহিলা আ’লীগ ও জাতীয় মহিলা সংস্থার আয়োজনে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিন পালিত গাবুরা লক্ষি¥খালী মোহাম্মাদিয়া জামে মসজিদ উদ্বোধন করলেন এসপি মোস্তাফিজুর রহমান আবারও তাপপ্রবাহ শুরু, লঘুচাপ বাড়াতে পারে বৃষ্টি শোকাবহ আগস্ট উন্নত যাতায়াত যোগাযোগ ব্যবস্থায় বাংলাদেশ

মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কেনার উদ্যোগ

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৫ মার্চ, ২০২২

এফএনএস : মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া ৫টি কেন্দ্র থেকে সরকার বিদ্যুৎ কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী ২ বছর ওসব কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কেনা হবে। ওই ৫টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মধ্যে নারায়ণগঞ্জে রয়েছে ৩টি, যশোরের নোয়াপাড়ায় একটি এবং একটি রয়েছে খুলনার গোয়ালপাড়ায়। ওসব কোম্পানি ৫ বছরের জন্য মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব করেছিল। কিন্তু সরকার ওসব কেন্দ্রকে সরকার ২ বছরের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে। আর ওসব কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কিনতে সরকারের খরচ হবে ৮ হাজার ৮০৪ কোটি টাকা। অর্থ মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সরকারের নীতিগতভাবে অনুমোদন পাওয়া বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোর মেয়াদ গত বছরের বিভিন্ন সময় শেষ হয়। যদিও সরকারের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভাড়াভিত্তিক ওসব কেন্দ্র থেকে আর বিদ্যুৎ কিনবে না। কিন্তু পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কয়েকটি কোম্পানির বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ বিবেচনায় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি সরকারের কাছে সুপারিশ করে। বিষয়টি নিয়ে গত জুন থেকেই টানা আলোচনা চলছিল। অবশেষে ‘নো ইলেকট্রিসিটি, নো পেমেন্ট’ নীতিমালার ভিত্তিতে বিদ্যুৎ কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সূত্র জানায়, যে ৫টি কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কেনা হচ্ছে সেগুলোর মধ্যে খুলনার গোয়ালপাড়ায় ১১৫ মেগাওয়াটের কেন্দ্রটি থেকে বিদ্যুৎ কিনতে সরকারের খরচ হবে ১ হাজার ২৯৫ কোটি টাকা। যশোরের নওয়াপাড়ায় ৪০ মেগাওয়াট কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কিনতে খরচ হবে ৪৬০ কোটি টাকা। সামিট পাওয়ারের নারায়ণগঞ্জের মদনগঞ্জের ১০২ মেগাওয়াট কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কেনা বাবদ পরিশোধ করতে হবে ১ হাজার ১৫৭ কোটি টাকা। নারায়ণগঞ্জ মেঘনা ঘাটে ১০০ মেগাওয়াটের অরিয়ন পাওয়ার কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কিনতে সরকারকে খরচ করতে হবে ১ হাজার ১৪৬ কোটি টাকা। তাছাড়া নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ ১০০ মেগাওয়াটের ডাচ বাংলা পাওয়ার অ্যাসোসিয়েট থেকে বিদ্যুৎ কেনা বাবদ খরচ হবে ১ হাজার ১৪৬ কোটি টাকা। এদিকে আগামী একবছরের মধ্যে ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। আর যখন নতুন করে ওই বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে তখন কুইক রেন্টাল বিলুপ্ত করা হবে। কুইক রেন্টাল এখন আগের চেয়ে ভিন্ন। কারণ, সেগুলোর যতটুকু ব্যবহার করা হবে ততটুকু মূল্যই দিতে হবে, আগের মতো নয়। সরকার কুইক রেন্টালের মেয়াদ বুঝেশুনেই আগামী দুই বছরের জন্য বাড়িয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com