মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:৪১ অপরাহ্ন

রাফায় চলছে গণহত্যা

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

দৃষ্টিপাত ডেস্ক ॥ দখলদার ইসরাইলি বাহিনী ঐতিহাসিক রাফা শহরের একের পর এক বিমান হামলা চালিয়ে জনবহুল এই শহরকে লাশের শহরে পরিনত করেছে। গত এক সপ্তাহ ব্যাপী দখলদার বাহিনীর হাজাজার হাজার সেনা রাফা শহরের চারিদিক দিয়ে ঘেরাও করে এবং স্থল অভিযান পরিচালনার পাশাপাশি বিমান হামলা করে। গাজায় অর্থনীতি এবং সমৃদ্ধ বানিজ্যিক নগরী হিসেবে রাফার পরিচিতির শেষ নেই। গত কয়েক যুগ ধরে রাফা প্রধান বানিজ্যিক কেন্দ্র হিসেবে নিজেকে বিশেষ ভাবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। মিশর সীমান্ত সংলগ্ন হওয়ায় রাফা ব্যবসা বাণিজ্যের জন্য ও উন্মুক্ত। শহরটিতে অন্তত তিন লক্ষাধীক ফিলিীস্তনির বসতি এবং ব্যবসা বাণিজ্যের জন্য প্রতিনিয়ত গাজার বিভিন্ন এলাকা হতে হাজার হাজার ফিলিস্তিনি রাফায় আসা যাওয়া করে। দখলদার বাহিনী এবার খান ইউনিসের ন্যায় রাফাতেও বিরানভূমিতে পরিনত করতে চাইছে যে কারনে রাফার সর্বত্র চলছে বিমান হামলা। ফিলিস্তিনিদের হত্যার পাশাপাশি দখলদার বাহিনী রাফার হাসপাতালগুলো ধ্বংস করেছে। আল জাজিরার বিশ্লেষন ধর্মী প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ইসরাইলি বাহিনী রাফা শহরকে ফিলিস্তিনি শুন্য করবার চাইছে যে কারনে রাফার আহত জনগোষ্ঠী যেন চিকিৎসা গ্রহণ করে পুনরায় সুস্থ হয়ে রাফায় বসবাস করতে না পারে এজন্যই রাফার হাসপাতাল গুলোকে ধ্বংস করা হচ্ছে। আল জাজিরা আরও জানিয়েছে গত এক সপ্তাহে ইতিমধ্যে দখলদার বাহিনী রাফার ঘরে ঘরে অভিযান চালিয়ে অন্তত পাঁচ সহস্রাধীক ফিলিস্তিনিকে গ্রেফতার করেছে। তারা গণহত্যায় যেমন নারী ও শিশুদেরকে অন্তুর্ভূক্ত করেছে অনুরুপ ভাবে গ্রেফতার অভিযানে মাদেরকেও তাদের শিশু সন্তান সহ গ্রেফতার করা হচ্ছে। গ্রেফতারকৃতদেরকে যৌন নির্যাতন ও পরিচালনা করছে। শত শত গ্রেফতার রকা ফিলিস্তিনি পুরুষদেরকে কেবল মাত্র একটা হাফপ্যান্ট পরিধান করে রাখা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইসরাইলের যুদ্ধ বিরতির প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় চরম উদ্বেগহ প্রকাশের পাশাপাশি হুশিয়ারী উচ্চারন করার পর এবার রাফার অভিযান, গণহত্যা ও গ্রেফতারের ক্ষেত্রে ইসরাইলকে নিষ্ঠুরতম অভিযান বন্ধের আহবান জানিয়েছে। রয়টার্স পরিবেশিত খবরে বলা হয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছে যে ইসরাইলের অভ্যন্তরে গত সাত অক্টোবর হামাস যে অভিযান ও নিষ্ঠুরতা প্রদর্শন করে ইসরাইল বর্তমান সময়ে গাজায় যা করছে তা গত সাত অক্টোবরের নৃশংসতাকেও হার মানিয়েছে। প্রতিদিনই গাজার নিরীহ ও বেসামরিক ফিলিস্তিনিদেরকে হত্যা করছে। তাদের হত্যা হতে রেহাই পাচ্ছে না নারী ও শিশুরা। এদিকে ইয়েমেনের হুতি অবস্থানে আবারও মার্র্কিন যুক্তরাষ্ট্র ক্ষেপনাডস্ত্র হামলা চালিয়েছে। গতকাল গভীর রাতে উক্ত ক্ষেপনাস্ত্র হামলায় অন্ততঃ উনিত্রিশজন হুতি যোদ্ধা নিহত হয়েছে। হামাসের সশস্ত্র শাখা আল কাসেম তাদের টেলিগ্রাম পোষ্টে জানিয়েছে রাফা শহরে দখলদার যে ভাবে বিমান হামলা ও স্থল অভিযান পরিচালনা করচে তাতে হাজার হাজার রাফাবাসি কেবল হত্যা কান্ডের শিকার হচ্ছে তা নয় তারা বাস্তচ্যুত হচ্ছে। ইতিমধ্যে গাজার সত্তর ভাগ অধিবাসি বাস্তচ্যুত হয়েছে এবং পঞ্চাশ ভাগ বসতবাড়ী ধ্বংস করেছে ইসরাইল বাহিনী। দখলদার ইসরাইলি বাহিনী গতকাল গাজার জাতিসংঘের সদর দপ্তরের নিচে হামাসের একটি সুড়ঙ্গ আবিস্কার করেছে বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোকে জানিয়েছে। পশ্চিমা মিডিয়ার খবরে বলা হয়েছে দখলদার বাহিনীর সদস্যরা বিদেশী সাংবাদিকদেরকে উক্ত সুড়ঙ্গের প্রবেশ পথ সহ তাদের স্থাপনা দেখিয়েছে। এদিকে গাজার হামাস নিয়ন্ত্রিত প্রশাসন পুণঃগঠন ও গাজার বিভিন্ন এলাকা হতে মাল সম্পত্তি ফেলে জীবন বাঁচাতে পালিয়ে যাওয়া নাগরিকদের ধন সম্পত্তি পাহারায় নিয়োজিত থাকাদের উপর দখলদার বাহিনী বিমান হামলা পরিচালনা করছে। ফিলিস্তীনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আববাজ বলেছে গত পাঁচ মাসের অধিকতর সময়ে ইসরাইল গাজায় একের পর এক হামলা পরিচালনা করে দৃশ্যতঃ গাডজাকে অন্ধকার যুগে নিয়ে গেছে। খাদ্য, বাসস্থান, চিকিৎসা সব হতে বঞ্চিত ফিলিস্তিনিরা। এদিকে গতকাল মিশরের পক্ষ হতে বলা হয়েছে গাজায় যুদ্ধ বিরতির বিষয়ে মিশর আবারও মধ্যস্থতা করার নীতি অবলম্বন করেছে আর এ কারনে সব পক্ষের সাথে আলোচনা শুরু করেছে। হিজবুল্লাহ যোদ্ধারা আবারও ইসরাইলে হামলা চালিয়েছে। তাদের সাফকথা যতদিন দখলদার ইসরাইল গাজায় হামলা চালাবে ততোদিন তারা ইসরাইলে হামলা করবে। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে পাঁচমাসে ইসরাইল বাহিনী আঠাশ হাজার ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে। গত চচ্চিশ ঘন্টায় দেড়শতাধীক ইসরাইলকে হত্যা করেছে। সৌদি আরব আবারও ইসরাইলের প্রতি কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারন করে বলেছে রাফায় গণহত্যা ইসরাইলকে সত্যিকার কসাইতে পরিনত করবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com