শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:১৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
চিংড়ীর বাজার মূল্য হ্রাস \ গভীর সংকটে চিংড়ী শিল্প \ হাসি নেই চাষীদের মুখে \ অর্থনীতিতে বিরুপ প্রভাব ঝাউডাঙ্গায় শেখ ফজলুল হক মনি স্মৃতি ফুটবল টূর্ণামেন্ট উদ্বোধন যশোরে হোটেলে ঢুকলো কাভার্ড ভ্যান, বাবা-ছেলেসহ নিহত ৫ রোমাঞ্চকর জয়ে নকআউটে দক্ষিণ কোরিয়া জিতেও চোখের জলে সুয়ারেস-কাভানিদের বিদায় সাতক্ষীরায় বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে এনজিও ফাউন্ডেশন দিবস পালিত প্রতিবন্ধী মানুষের উন্নয়নে সকলকে কাজ করতে হবে -প্রধানমন্ত্রী সদর থানা পুলিশের অভিযানে ওয়ারেন্ট ভূক্ত ৩ আসামী আটক শ্যামনগরে শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ও সাফল্য প্রচারে উঠান বৈঠকে এমপি জগলুল হায়দার বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

শিবপুরের শিয়ালডাঙ্গায় আব্দুর রহীম কমলা চাষে বিপ্লব এনেছেন

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৯ জুন, ২০২২

মাছুদুর জামান সুমন \ সাতক্ষীরা সদর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের শিয়ালডাঙ্গায় কমলা লেবুর সুভাষ ছড়িয়ে জেলা ব্যাপী সেই সুবাস ছড়িয়ে পড়েছে। আলোয় আলোকিত হচ্ছে, কমলা চাষের আলোর বিচ্ছুরন দিক হতে দিকে ছড়িয়ে পড়ছে। পাহাড়ীফল আর বৈরী আবহাওয়ার অনুকুলে কমলা চাষ বিশেষ ভাবে পরিচিতি পেলেও সাতক্ষীরা কৃষি স¤প্রসারন অধিদপ্তরের সহায়তায় ও সার্বিক ব্যবস্থাপনায় শিয়ালডাঙ্গা গ্রামের আলহাজ্ব আঃ আলীর পুত্র আব্দুর রহীম পাঁচবিঘা জমিতে বারী-১ মালটা ও দার্জিলিং কমলা চাষে বিশেষ আয়োজন করেছে। পাঁচবিঘা জমির তিন বিঘাতে মালটা ও দুই বিঘাতে দার্জিলিং কমলা চাষ যেন দৃষ্টিনন্দন, মনজুড়ানো এক অনন্য অসাধারন সৃষ্টি। কমলাচাষী আব্দুর রহীম জানান তিন বছর পূর্বে তিনি চাষ শুরু করেন অর্থাৎ মালটা ও কমলা চারা রোপন করেন, কৃষি দপ্তরের পরামর্শে গাছের পরিচর্যা সহ সার্বিক ব্যবস্থায় থাকি, দ্বিতীয় বছরে প্রথম সাফল্যে মুখ দেখি, দুই একটি গাছে মালটা ধরে পরবর্তি বছর অর্থাৎ তিন বছরের ব্যবধানে প্রতিটি গাছে ফল ধরে, বোটায় বোটায়, যেন পাতায় পাতায় ফল আর ফল, গাছ যেন নুয়ে পড়ার উপক্রম, থোকা থোকা ফল, যে দৃশ্য দেখতে দুরদুরান্ত হতে আসে জনসাধারন, পরিস্থিতি এমন বাগানটি প্রদর্শন বাগানের রুপ ধারন ও পরিচিতি পেয়েছে। মালটা চাষে সত্যিকার অর্থে বিপ্লব এনেছেন আব্দুর রহীম, একাগ্রতা, আত্মবিশ্বাস, পরিশ্রম যে কোন অসাধ্যকে সাধ্যকরা যায় তার অন্যতম উদাহরন শিয়ালডাঙ্গায় মালটা ও কমলার চাষ। দেশের মালটা ও কমলার চাহিদা মিটাতে প্রতি বছর বিপুল পরিমান বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয়ে আমদানী করতে হয়। সাতক্ষীরার শিয়ালডাঙ্গা হতে পারে মালটা ও কমলা রপ্তানীর ক্ষেত্র। একই সাথে স্থানীয় অর্থনীতিতেও রাখতে পারে বিশেষ অবদান, পাঁচবিঘা জমিতে কেবল মালিক পক্ষের উপার্জনের মাধ্যম তা নয় কর্মরত শ্রমিক, সুফলভোগী, অংশিজন সকলেই লাভবান হতে পারে। চাষী আব্দুর রহমান বলেন সরকারি অনুদান পেলে চাষাবাদের ক্ষেত্র আরও বর্ধিত করা সম্ভব, তিনি বলেন আশানুরুপ উৎপাদন হলে বিঘা প্রতি ৫/৬ লক্ষটাকা ফল বিক্রি করা সম্ভব। শিয়ালডাঙ্গার আঃ রহিমের কমলা বাগান অর্থ উপার্জনের যে হাতছানি দিচ্ছে তা সর্বত্র ছড়িয়ে পড়–ক, বেকারের হাত কর্মির হাতে পরিনত হোক।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com