শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
চিংড়ীর বাজার মূল্য হ্রাস \ গভীর সংকটে চিংড়ী শিল্প \ হাসি নেই চাষীদের মুখে \ অর্থনীতিতে বিরুপ প্রভাব ঝাউডাঙ্গায় শেখ ফজলুল হক মনি স্মৃতি ফুটবল টূর্ণামেন্ট উদ্বোধন যশোরে হোটেলে ঢুকলো কাভার্ড ভ্যান, বাবা-ছেলেসহ নিহত ৫ রোমাঞ্চকর জয়ে নকআউটে দক্ষিণ কোরিয়া জিতেও চোখের জলে সুয়ারেস-কাভানিদের বিদায় সাতক্ষীরায় বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে এনজিও ফাউন্ডেশন দিবস পালিত প্রতিবন্ধী মানুষের উন্নয়নে সকলকে কাজ করতে হবে -প্রধানমন্ত্রী সদর থানা পুলিশের অভিযানে ওয়ারেন্ট ভূক্ত ৩ আসামী আটক শ্যামনগরে শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ও সাফল্য প্রচারে উঠান বৈঠকে এমপি জগলুল হায়দার বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

সহকারী জজ পরীক্ষায় প্রথম-দ্বিতীয়-চতুর্থ-পঞ্চম রাবি থেকে

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শনিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২২

এফএনএস: বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিসের (বিজেএস) ১৪তম সহকারী জজ পরীক্ষার মেধাতালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এতে চমক দেখিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা। বিজেএস পরীক্ষায় ১ম হয়েছেন রাবির শিক্ষার্থী। এছাড়াও ২য়, ৪র্থ, ও ৫ম হয়েছেন রাবির শিক্ষার্থী। গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশন সচিবালয়ের ওয়েবসাইটে এই পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এতে ১০২ জনের মধ্যে প্রথম হয়েছেন, রাবির আইন বিভাগের ৩৯তম ব্যাচের শিক্ষার্থী সুমাইয়া নাসরিন শামা। এ ছাড়া দ্বিতীয় ও চতুর্থ হয়েছে একই ব্যাচের যথাক্রমে জান্নাতুন নাঈম মিতু ও ইশরাত জাহান আশা। তিন জনই বর্তমানে রাবির আইন বিভাগের মাস্টার্সে অধ্যয়নরত। এ ছাড়া ৫ম হয়েছেন ৩৭ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আতিয়া খাতুন। প্রথম হওয়া সুমাইয়া শামার গ্রামের বাড়ি নাটোরের বড়াইগ্রামে। তিনি ২০১৩ সালে বড়াইগ্রাম হাই স্কুল থেকে মাধ্যমিক এবং রাজশাহী কলেজ থেকে ২০১৫ সালে উচ্চমাধ্যমিকপাস করেন। পরে ২০১৫-১৬ সেশনে রাবির আইন বিভাগে ভর্তি হন। তার অ্যাকাডেমিক ফলাফলও ভালো। অনার্সের মেধা তালিকায় দ্বিতীয়। বর্তমানে তিনি মাস্টার্সে অধ্যয়নরত আছেন। মেধায় দ্বিতীয় হওয়া জান্নাতুন নাইম মিতুর বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নয়ন-শুকা এলাকায়। নবাবগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় থেকে ২০১২ সালে মাধ্যমিক (এসএসসি) ও রাজশাহী নিউ গভ. ডিগ্রি কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক(এইচএসসি) পাস করেন। জানতে চাইলে সুমাইয়া শামা বলেন, আমার এই ফলাফলের জন্য পরিবার ও বিভাগের শিক্ষকদের অবদান সবচেয়ে বেশি। সত্যি বললে আমি প্রথম হবো এমনটা প্রত্যাশা ছিল না। আমার টার্গেট ছিল মেধাতালিকায় নাম এলেই হবে। মেধাতালিকায় ২য় হওয়া জান্নাতুন নাঈম মিতু বলেন, আমার মা -বাবা, বিভাগের শিক্ষকরা আমাকে অনেক বেশি হেল্প করেছেন। যখন যা লাগে সেই বিষয়ে দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। যার জন্য আমি এ পর্যন্ত আসতে পেরেছি। সেইসঙ্গে আমার কয়েকজন বন্ধু রয়েছে তারাও আমাকে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করেছে। আমি সবার কাছেই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। এ বিষয়ে আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক হাসিবুল আলম প্রধান বলেন, আজকের দিনটি আমাদের আইন বিভাগের জন্য বিশেষ এক আনন্দ ও গর্বের দিন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অদম্য এই মেধাবী শিক্ষার্থীরা আবারও প্রমাণ করলো আমাদের ঐতিহ্যবাহী আইন বিভাগই সেরা। আমাদের বিভাগের বিভিন্ন ব্যাচ থেকে আরও অনেকেই সহকারী জজ হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছে। সবাইকে অভিনন্দন জানাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2013-2022 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com